28.4 C
Rangpur City
Sunday, January 29, 2023

মৌসুম শেষ হওয়ার পরেও অসময়ে বাজারে মিলছে আম, কেজি ৩২০ টাকা

-- বিজ্ঞাপন --

আমের মৌসুম শেষ হয়ে গেছে কয়েক মাস আগেই। নতুন আম আসতে আরও কয়েক মাস অপেক্ষা করতে হবে ভোক্তাদের। কিন্তু দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলিতে বাজারে উঠতে শুরু করেছে অসময়ের কাটিমন আম। কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩২০ টাকা করে। সুন্দর এই আমের স্বাদ নিতে বাড়তি দাম দিয়ে হলেও কিনছেন অনেক ক্রেতা।

হিলি বাজারে ফল কিনতে আসা আব্দুস সাত্তার বলেন, ‘বাজারে কলা কিনতে এসেছিলাম, দোকানে এসে হঠাৎ দেখি আম। এই সময়ে তো সাধারণত আম পাওয়া যায় না। এর ওপর আমের রঙ ও দেখতে সুন্দর। স্বাদও নাকি বেশ ভালো। তাই দেখে নিতে ইচ্ছে করলো। কিন্তু দাম শুনেই তো অবাক! প্রতি কেজি ৩২০ টাকা। তারপরও আধা কেজি কিনলাম।’

mango3
-- বিজ্ঞাপন --

ফল কিনতে আসা ইউসুফ হোসেন বলেন, ‘আমার দাদি অসুস্থ হয়ে বেশ কিছুদিন ধরে বিছানাগত হয়ে পড়ে রয়েছে। সে আমার কাছে কিছুদিন আগে আম খেতে চেয়েছিল- কিন্তু বাজারে খুঁজেও আম পাইনি। আজ তার জন্য বাজারে আনার কিনতে এসেছিলাম, দোকানে এসে আনারের সঙ্গে আম দেখতে পেয়েছি। দাম বেশি হলেও যেহেতু দাদি খেতে চেয়েছে তাই তার ইচ্ছা পূরণের জন্য ৮০ টাকা দিয়ে আড়াইশো গ্রাম আম কিনেছি।’

ফল কিনতে আসা শাহিন হোসেন বলেন, ‘পেয়ারা কিনতে হিলি বাজারে নেপালের ফলের দোকানে যাই। এ সময় ফলের দোকানে অন্য ফলের সঙ্গে সাজানো আম দেখতে পাই। এই সময়ে আম দেখতে পেয়ে কিছুটা অবাক হয়েছি। কিন্তু আমের যে দাম তাতে করে আমাদের মতো মানুষদের পক্ষে এত দাম দিয়ে আম কিনে খাওয়া অসম্ভব ব্যাপার। তাই শুধু নেড়েচেড়ে দেখলাম। দামটা যদি একটু কম হতো, তাহলে অন্তত অল্প পরিমাণে হলেও কিনে স্বাদ নিতে পারতাম।’

mango1
-- বিজ্ঞাপন --

হিলি বাজারের ফল বিক্রেতা নেপাল চন্দ্র বলেন, ‘আমের মৌসুম শেষ হয়ে গেছে বেশ কিছু দিন। এখন কোনও আমের মৌসুম নয়, তাই বাজারে বেশ কিছুদিন ধরে আম ছিল না বা আমরাও বিক্রি করিনি। সম্প্রতি নওগার সাপাহার অঞ্চলে কাটিমন জাতের নতুন আম উঠেছে বলে খবর পাই। এই আম দেখতে যেমন সুন্দর ও তেমনি স্বাদ ভালো- যার কারণে আজকেই প্রথম সেখানকার বাগান থেকে আম এনে বিক্রি করছি। প্রতি কেজি আম বাগান থেকে ২০০ টাকা কেজি দরে কিনেছি। এর সঙ্গে খরচ রয়েছে। আবার এক ক্যারেট আমে তিন কেজি নষ্ট বের হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সবমিলিয়ে ২৭০ টাকার মতো পড়তা পড়ে। সেই আম ৩২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি। অনেকে আমের দাম শুনে না নিয়ে ফিরে যাচ্ছে। আবার কেউ কেউ কিনছেন। আমের চাহিদা বেশ ভালোই লক্ষ্য করছি। বিকালের দিকে ২৪ কেজি আম নিয়ে এসেছিলাম। সন্ধ্যার মধ্যেই তিন কেজি আম বিক্রি হয়ে গেছে। বাজারে যে ফল কিনতে আসছেন অল্প পরিমাণে হলেও আম নিচ্ছেন।’

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,603FollowersFollow
854SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles