25 C
Rangpur City
Sunday, February 5, 2023

ফেলে যাওয়া জুতার সূত্রে অটোরিকশাচালকের ২ খুনি গ্রেপ্তার

-- বিজ্ঞাপন --

ইউক্যালিপটাস বাগানে পড়েছিল অটোরিকশাচালকের মরদেহ। কাঁচি দিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করা হয় তাঁকে। পাশেই ঘাসের ওপর পাওয়া যায় এক জোড়া চামড়ার জুতা। সেই জুতার সূত্রে ধরা পড়লেন দুই যুবক। তাঁরা আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর একটি হত্যার ঘটনায় এভাবেই আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবি করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার দুজন হলেন উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রাজারামপুর ঘাটপাড়া গ্রামের আসমাউল হোসেন আকাশ (২২) ও পৌর শহরের স্বজনপুকুর বুন্দিপাড়া গ্রামের মামুন (১৮)।

-- বিজ্ঞাপন --

পুলিশ জানায়, দুজনকে গত শুক্রবার ঢাকার ফকিরাপুল কাঁচাবাজার থেকে গ্রেপ্তার করে শনিবার বিকেলে দিনাজপুরের বিচারিক হাকিম আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরে তাঁরা শিবনগর ইউনিয়নের রাজারামপুর দক্ষিণ বাসুদেবপুরের অটোরিকশাচালক মো. জনি আহম্মেদকে (২১) খুনের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ জানান, ওই ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া-মাছুয়াপাড়ার মাঝখানের একটি ইটভাটার পাশ থেকে লাশ উদ্ধারের পাশাপাশি জুতা জোড়া আলামত হিসেবে জব্দ করা হয়। পরে পুলিশ আশপাশের গ্রামে জুতার ছবি দেখিয়ে মালিকের খোঁজ নিতে শুরু করে। একপর্যায়ে জানা গেল ওই জুতা আসমাউলের। এরপর তদন্ত করতে করতে জানা গেল তিনি আছেন ঢাকায়। সেখানে অভিযান চালিয়ে নেশাগ্রস্থ  অবস্থায় তাঁকে ও তাঁর সহচর মামুনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

-- বিজ্ঞাপন --

আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে এসআই কালাম আরও জানান, ঘটনার দিন ২৯ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা পৌর শহরের ঢাকা মোড় থেকে জনির অটোরিকশাটি ভাড়া করেন। পরে ঘটনাস্থলের কাছে এসে জনি আর সামনে যেতে না চাইলে আসামিরা তাঁকে জোর করে পাশের ইউক্যালিপটাস বাগানে নিয়ে কাঁচি দিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করেন এবং রিকশা নিয়ে পালিয়ে যান।

ওই রাতেই পার্বতীপুর থানার পুলিশ হলদিবাড়ী এলাকায় ধাওয়া দিলে তাঁরা রিকশা রেখে পালিয়ে যান।পরদিন সকালে জনির লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তাঁর বাবা আতাউর রহমান হত্যা মামলা করেন।

-- বিজ্ঞাপন --

ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, অটোরিকশাচালক জনিকে হত্যার ঘটনায় জড়িত তিনজনের মধ্যে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অন্য আসামিকে আটক করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,601FollowersFollow
868SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles