19.8 C
Rangpur City
Tuesday, December 6, 2022

স্ত্রীর মরদেহ নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে স্বামীসহ প্রাণ গেল ২ জনের

-- বিজ্ঞাপন --

অ্যাম্বুলেন্সযোগে স্ত্রীর মরদেহ নিয়ে ঢাকা থেকে গাইবান্ধার বাড়িতে ফিরছিলেন আয়নাল হোসেন। পথে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের ঘোঘা বটতলা এলাকায় শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস অ্যাম্বুলেন্সটিকে ধাক্কা দেয়। এতে আয়নাল হক (৪৫) সহ দুইজন নিহত হয়েছেন।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুইজন। তারা বর্তমানে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

-- বিজ্ঞাপন --

নিহতরা হলেন- গাইবান্ধা সদর উপজেলার কলমা বাজার এলাকার ফরিদ উদ্দিনের ছেলে আয়নাল হক (৫২) এবং পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার দ্বীন ইসলাম (৩৫)। তিনি অ্যাম্বুলেন্সচালক ছিলেন।

আহতরা হলেন- একই উপজেলার মকবুল হোসেনের ছেলে মিজানুর রহমান মিজান (১০) নিহতের ছেলে ফিরোজ আলী (৩০)।

-- বিজ্ঞাপন --

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ট্রাফিক পরিদর্শক একেএম বানিউল আনাম বলেন, বিকেলে বগুড়া থেকে শ্যামলী পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস ঢাকা যাচ্ছিল এবং ঢাকা থেকে একটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স আসছিল। ঘোঘা বটতলা এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সটি পৌঁছালে শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান আয়নাল। আহত হন আরও তিনজন। তাদের উদ্ধার করে শজিমেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অ্যাম্বুলেন্সচালক দ্বীন ইসলাম মারা যান।

তিনি বলেন, দুর্ঘটনার পর পরই বাসের চালক-হেলপার পালিয়ে গেছেন। বাস ও অ্যাম্বুলেন্স পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। মরদেহগুলো হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

হাসপাতালে ভর্তি ফিরোজ আলী বলেন, গুরুতর অসুস্থ মাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেখানেই মারা যান মা। অ্যাম্বুলেন্সযোগে মায়ের মরদেহ নিয়ে গ্রামে ফেরার পথে দুর্ঘটনা ঘটে। এতে বাবা আয়নাল হকও মারা গেছেন।

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বানিউল আনাম বলেন, দুর্ঘটনার পরপরই ঘাতক বাসের চালক-হেলপার পালিয়ে যাওয়ায় তাদের কাউকে আটক করা যায়নি। তবে বাস ও অ্যাম্বুলেন্স জব্দ করা হয়েছে। পাশাপাশি থানায় একটি মামলা হয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,607FollowersFollow
769SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles