27.5 C
Rangpur City
Wednesday, August 10, 2022
Royalti ad

লালমনিরহাটে বন্যার কিছুটা উন্নতি, এখনো ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি

-- বিজ্ঞাপন --

তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ২০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় লালমনিরহাটে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে বেড়েছে মানুষের দুর্ভোগ।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, যদি উজানে ভারি বৃষ্টিপাত না হয়, তাহলে দ্রুত তিস্তার পানি নেমে যাবে। বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) সকাল ৬টায় ডালিয়া ব্যারাজ পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ২০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

-- বিজ্ঞাপন --

ব্যারাজ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার নিচে হওয়ায় ব্যারাজের ভাটিতে থাকা হাতীবান্ধা, কালীগঞ্জ, আদিতমারী ও সদর উপজেলার নদী তীরবর্তী চর ও নিম্নাঞ্চলগুলোর বাড়িঘর থেকে পানি সরতে শুরু করেছে।

গত ১ আগস্ট সোমবার ভারতের উজানের ঢলে ও টানাবর্ষণে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার ওপরে ও গত মঙ্গলবার বিকেলে ডালিয়া ব্যারাজ পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ১০ সে.মি ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। এতে ব্যারাজের ভাটিতে থাকা জেলার হাতীবান্ধা, কালীগঞ্জ, আদিতমারী ও সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়ে পানিবন্দি হয়ে পড়ে ১০ হাজার পরিবার। এতে রোপা আমন ধান, বীজতলা, পাটক্ষেত তলিয়ে গিয়ে ফসলের ক্ষতি হয়। ভেসে যায় পুকুরের মাছ। বাড়িঘরে পানি উঠায় গরু ছাগল নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন বানভাসি মানুষজন।

-- বিজ্ঞাপন --

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বানভাসি মানুষদের জন্য ৩ হাজার ১শ’ শুকনো খাবার প্যাকেট ও ৮৪ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। গতকাল বিকেলে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ শুরু হলেও বানভাসিদের চাহিদার তুলনায় তা অপ্রতুল।

আজ বৃহস্পতিবার জেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারিভাবে ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলো বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করবে বলে জানা গেছে। পানিবন্দি মানুষদের তালিকা করার কাজ চলছে। এছাড়াও পর্যাপ্ত ত্রাণ মজুত আছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,637FollowersFollow
497SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles