26.6 C
Rangpur City
Wednesday, May 25, 2022
Royalti ad

“রংপুরে ১২০ টাকায় পুলিশের চাকরি পেলেন ৮০ জন”

-- বিজ্ঞাপন --Royalti ad

রংপুর পুলিশ লাইন্সের গেটে কনস্টেবল পদে চাকরিপ্রার্থী আর তাদের অভিভাবকদের পদচারণায়। ঘড়ির কাঁটা তখন ভোর ৪টা ৩০ মিনিট ছুঁইছুঁই। নিস্তব্ধ রাতের নীরবতা ভাঙে। নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফলের অপেক্ষায় আছেন তারা।

অবশেষে সব উৎকণ্ঠার অবসান ঘটিয়ে বুধবার (৩০ মার্চ) ভোর সাড়ে চারটার দিকে রংপুর জেলার পুলিশ সুপার ফেরদৌস আলী চৌধুরী প্রাথমিকভাবে নির্বাচিতদের ফলাফল ঘোষণা করেন। এ সময় নিয়োগ কমিটির সদস্য ও রংপুর জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

-- বিজ্ঞাপন --

ফলাফল ঘোষণার সময় উপস্থিত প্রার্থী ও অভিভাবকরা যোগ্যতার ভিত্তিতে মাত্র ১২০ টাকায় বাংলাদেশ পুলিশের কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাওয়ায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এসময় নির্বাচিত প্রার্থীরা অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেন।

এক প্রার্থী বলেন, আজ ভাইভা দেওয়ার পর থেকেই মনে হচ্ছিলো আমি টিকবো। আমার লিখিত পরীক্ষাও ভালো হয়েছিল। অনেকের কাছে নানারকম গুজব শুনে ভয় পেয়েছিলাম আমার হবে কি না। কিন্তু আজ রেজাল্ট পেয়ে আমার সব শঙ্কা দূর হয়েছে। টাকা আর তদবির ছাড়া যে সরকারি চাকরি হয়, বাংলাদেশ পুলিশ তার প্রমাণ।

-- বিজ্ঞাপন --

অপর এক প্রার্থী বলেন, আমার বাবা গরীব কৃষক। অনেকেই বলেছিলেন টাকা ছাড়া চাকরি হবে না, কিন্তু আমি হাল ছাড়িনি। বাংলাদেশ পুলিশ মাত্র ১২০ টাকায় চাকরি দেওয়ায় আমার মতো গরীব কৃষকের ছেলের চাকরি হয়েছে। এসময় সেখানে উপস্থিত তার মা-বাবাও ছেলের চাকরির আনন্দে কেঁদে ফেলেন।

বাদ পড়া প্রার্থীদের একজন বলেন, ভাইভায় না টিকে খারাপ লাগছে। কিন্তু যে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় নিয়োগ হয়েছে, তাতে আর আক্ষেপ নেই। এভাবেই যদি সব চাকরির নিয়োগ হয় তবে প্রার্থীদের আর দালাল বা প্রতারকদের খপ্পরে পড়তে হবে না। চাকরি পেতে টাকা বা তদবির লাগবে না।

-- বিজ্ঞাপন --Bicon Icon

বাংলাদেশ পুলিশের ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নিয়োগের জন্য রংপুর জেলার ৮০টি আসনের বিপরীতে প্রায় দুই হাজার ৮০০ প্রার্থী অনলাইনে আবেদন করেন। এবারের নিয়োগ পরীক্ষা ৩টি ধাপে অনুষ্ঠিত হয়।

আবেদন যাচাই-বাছাইয়ের পর যোগ্য প্রার্থীরা প্রথম ধাপে গত ১২ থেকে ১৪ মার্চ শারীরিক যোগ্যতা যাচাই ও মাঠ পরীক্ষায় অংশ নেন। পরে সেখান থেকে ৬৭৫ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়ে দ্বিতীয় ধাপে গত ২০ মার্চ লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন। সেখান থেকে পুলিশ হেডকোয়ার্টারে লিখিত পরীক্ষায় খাতা মূল্যায়নের পর ২৫৯ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হন।

পরবর্তীতে তৃতীয় ও চূড়ান্ত ধাপে গত ২৯ মার্চ ২৫৯ জন প্রার্থীর মধ্য থেকে মৌখিক ও মনস্তাত্ত্বিক পরীক্ষার মাধ্যমে সার্বিক মূল্যায়নে সাধারণ ও বিভিন্ন কোটায় ৮০ জনকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করা হয়।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,665FollowersFollow
402SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles