25.5 C
Rangpur City
Friday, May 20, 2022
Royalti ad

মুকুলে ভরে গেছে ঠাকুরগাঁওয়ের ২০০ বছরের পুরনো আমগাছটি

-- বিজ্ঞাপন --Royalti ad

মুকুলে মুকুলে ছেয়ে গেছে আমগাছটি। মুকুল ছাড়া চোখে পরছেনা গাছের পাতা। আমের শাখায় শাখায় বাতাসে দোল খাচ্ছে সেই মুকুলদল। বাতাসে মিশে সৃষ্টি করছে মৌ মৌ গন্ধ। সর্ববৃহৎ আম গাছটির শাখা-প্রশাখা আর মুকুলের ঘ্রাণ মানুষের মনকে বিমোহিত করছে। পাশাপাশি মধুমাসের আগমনী বার্তা শোনাচ্ছে সোনালি রঙের মুকুলগুলো। মুকুলসহ দুইশো বছরের এই পুরনো আম গাছটি এক পলক দেখার জন্য দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ছুটে আসছেন দর্শনার্থীরা।

ঠাকুরগাঁওয়ের বালীয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের হরিণমারী সীমান্তে মন্ডুমালা গ্রামে অবস্থান এই সূর্য্যপরী আমগাছটির। গাছটি ০৩ বিঘা জমি জুড়ে দাঁড়িয়ে আছে।অসংখ্য ইতিহাসের নীরব সাক্ষী প্রাক ঐতিহাসিক যুগের প্রাচীন এই সূর্যপুরী আম গাছ। উত্তরের শান্ত জনপদের নিরব সাক্ষী এই গাছটির ডালপালা দৈর্ঘ্য প্রায় ৯০ ফিট। গাছটির বয়স কত তা ঠিক করে বলতে পাড়ছেন না কেও। তবে এলাকার বেশির ভাগ মানুষ এক মত যে প্রায় ২০০ বছরের কম নয়।

-- বিজ্ঞাপন --

এশিয়া মহাদেশের সবচেয়ে বড় আমগাছ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে গাছটি। এই গাছটিকে ঘিরে এরি মধ্যে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার হরিনমারি গ্রাম পরিচিতি পেয়েছে সাড়া দেশজুরে। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে নিজ চোখে আমগাছটি দেখার জন্য ছুটে আসছেন দর্শনার্থীরা৷গাছকে দেখেই ডালের উপরে ওঠে বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গিতে ছবি তুলছেন তারা। ছোট বাচ্চা থেকে শুরু করে বয়োবৃদ্ধ দর্শনার্থীরাও গাছের ডালের উপরে উঠে ছবি তুলে মনের স্বাদ মিটানোর চেষ্টা করছেন৷

ঢাকা থেকে আসা দর্শনার্থী সাইফুল্লাহ আল হেলাল বলেন,বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে অনেকদিন আগেই জানতে পারি যে এ জেলায় সবচেয়ে বড় আমগাছটি আছে। আজকে নিজ চোখে দেখা হল৷ বিশ্বাস করতে একটুও কার্পণ্য করিনি যে এটি সবচেয়ে বড় আমগাছ এশিয়ার মধ্যে। আজ দেখে অনেক ভাল লাগছে৷ তবে কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা উচিত বলে আমি মনে করি। অনেকজনে শিশুসহ, মহিলারাও গাছের উপরে উঠছে এতে করে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ যদি ক্ষতি হয় তাহলে বিনোদন নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা দরকার বলে আমি মনে করি।

-- বিজ্ঞাপন --

রাজশাহী থেকে আসা দর্শনার্থী রিপন আহমেদ বলেন, আমি ৭ ঘন্টা মোটরসাইকেল জার্নি করে এসেছি। আমি একটি ভিডিও দেখেছিলাম বালীয়াডাঙ্গীতে একটি বড় আমগাছ আছে৷ আজকে নিজের চোখে দেখে আমি বিমোহিত হয়েছি। জীবনে এত বড় আম গাছ আমি দেখিনি৷ আনন্দের পাশাপাশি যে বিষয়টি বলতে চাই যে, আমরা যারা অনেক দূর থেকে আসি দেখতে৷ আমার মত আরও অনেকজনে এসেছেন। এতদূর থেকে আসার পর অবশ্যই বিশ্রাম ও খাবারের প্রয়োজন। কিন্তু এখানে সেটি ব্যবস্থা নেই। এখানে একটি রেস্ট হাউজ,ভাল মানের রেস্টুরেন্ট এবং একটি মানসম্মত ওয়াসরুম স্থাপন করা জরুরী। এতে করে দর্শনার্থীরা উপকৃত হবে৷

দর্শনার্থী আবু হোসেন বলেন,আমি ছোট বেলায় জানতে পারি যে এখানে একটি বড় আমগাছ আছে৷ আজকে দেখলাম ও উপলব্ধি করলাম এটি সৃষ্টিকর্তার উপহার৷ দেখে অনেক ভাল লাগলো। যে বিষয়টি না বললেই না যে গাছের মুকুল গুলো অনেক তরতাজা। গাছের ডগায় ডগায় মুকুল ধরছে যা আমাকে বিমোহিত করেছে। আসলেই আমি গাছটি দেখে অনেক খুশি৷

-- বিজ্ঞাপন --Bicon Icon

আরেক দর্শনার্থী নাজিমা খাতুন বলেন,পরিবারসহ সবাই মিলে গাছটি দেখতে এসেছি। দেখে অনেক ভাল লাগলো। আর গাছ যে এত বড় হয় তা এটি না দেখলে বিশ্বাস হতনা৷ প্রত্যেকটি ডাল একটি গাছের ন্যায়।

পঞ্চগড় থেকে আসা দর্শনার্থী বজলার রহমান বলেন,আমি ছাত্রজীবনে একবার এসেছিলাম গাছটি দেখতে। এবারে আমার একটু ভিন্নতা মনে হয়েছে যে প্রত্যেকটটি ডগায় ডগায় মুকুল৷ যে বিষয়টি আমাকে প্রশান্তি দিয়েছে।এই গাছের আমটি খেতে পারলে অনেক ভাল লাগতো৷ তবে সরকারের পক্ষ থেকে এই গাছের আমটিকে যদি আলাদা ভাবে বাজারজাত করার প্রক্রিয়া করা হয় তাহলে ভাল হয়। যারা এই বড় গাছটির আম খেতে আগ্রহী তাদের আশা পূরণ হবে৷

মালিকপক্ষের একজন মোল্লা সাহেব ঢাকা পোষ্টকে বলেন, এখানে জমির খাজনা,সরকারি ট্যাক্সের কারনে ভিতরে দর্শনার্থী প্রবেশ বাবদ বিশ টাকা নেওয়া হয়। এখানে বিধিনিষেধ দেওয়া হলেও মানুষ মানেনা৷ আর গতবছরের চেয়ে এ বছর মুকুল অনেক বেশী দেখা যাচ্ছে৷ গতবছর পঞ্চাশ মণ আম পেয়েছি। এ বছর যে হারে মুকুল আশা করছি তিনশ মণ আম পাব। আর বাজারের চেয়ে এই গাছের আমের দাম একটু বেশী রাখা হয়। যেহেতু এটির চাহিদা অনেক বেশী। আমরা প্রতি কেজি একশত টাকা দরে বিক্রি করে থাকি৷

বালীয়াডাঙ্গী উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা যোবায়ের হোসেন বলেন, যেহেতু সেটি ব্যক্তিমালিকাধীন সেহেতু তারা চাইলে সেখানে পিকনক স্পষ্ট, রেস্ট হাউজ ও রেস্টুরেন্ট করত পারেন৷ আমাদের পক্ষ থেকে তাদেরকে একটি প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে। সেখানে যদি পিকনিক স্পট করা যায়।পরবর্তীতে আরও বিস্তারিত জানানো যাবে।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,667FollowersFollow
396SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles