26.6 C
Rangpur City
Monday, September 26, 2022
Royalti ad

মিঠাপুকুরে চুরি করতে গিয়ে গৃহবধূকে হত্যা, যুবকের আজীবন কারাদণ্ড

-- বিজ্ঞাপন --

রংপুরের মিঠাপুকুরে রেহেনা বেগম নামে এক বৃদ্ধার মাথায় পাথর দিয়ে আঘাত করে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আসামি লাভলু মিয়াকে আজীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিশেষ আদালত।

মঙ্গলবার (২৪ মে) দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ (বিভাগীয় স্পেশাল জজ) আদালতের বিচারক মো. রেজাউল করিম এ আদেশ প্রদান করেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি লাভলু মিয়া আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এর পরেই তাকে কড়া পুলিশ পাহারায় আদালতের হাজতখানায় ও পরে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

-- বিজ্ঞাপন --

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি হলেন, উপজেলার শংকরপুর উত্তরপাড়া গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে লাভলু মিয়া।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ২০১৫ সালের ২৬ জুলাই রাত ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার শংকরপুর উত্তরপাড়া গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে লাভলু মিয়া মামলার বাদী পার্শ্ববর্তী শংকরপুর মধ্যপাড়া গ্রামের খোরশেদ আলমের মা রেহেনা বেগমের ঘরের জানালা দিয়ে ঘরে প্রবেশ করে চুরি করার উদ্দেশ্যে কিন্তু ঘরের ড্রয়ার খুলে সেখানে মাত্র ১০০ টাকা পান। এরপর লাভলু মিয়া রেহেনা বেগমের কানে থাকা দুটি সোনার দুল জোর করে ছিনিয়া নেবার চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে কান থেকে দুটি দুল ছিনিয়ে নেন লাভলু।

-- বিজ্ঞাপন --

এ সময় রেহেনা বেগম লাভলুকে চিনতে পেরে তার নাম ধরে ডাকার সাথে সাথে আসামি তার সাথে থাকা বড় পাথর দিয়ে রেহেনা বেগমের মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করে তাকে হত্যা করেন। এরপর বৃদ্ধার মৃতদেহ টেনেহিঁচড়ে বাড়ির অদূরে বাঁশ ঝাড়ে ফেলে চলে যায়।

এ ঘটনায় নিহত রেহেনা বেগমের ছেলে খোরশেদ আলম বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ লাভলু মিয়াকে গ্রেপ্তার করলে সে হত্যার কথা স্বীকার করে এবং আদালতে ম্যাজিস্ট্রটের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। মিঠাপুকুর থানা পুলিশ তদন্ত শেষে আসামি লাভলু মিয়ার নামে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। আদালত ২০১৬ সালের ১৫ জুন মামলায় আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। এই মামলায় ২১ জন সাক্ষীর জবানবন্দি ও জেরা শেষে বিচারক আসামি লাভলু মিয়াকে দণ্ড বিধি আইনের ৩০২ ধারায় দোষি সাব্যস্ত করে আজীবন সশ্রম কারাদণ্ড, ৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

-- বিজ্ঞাপন --

অপরদিকে দণ্ডবিধি আইনের ৩৮০ ধারায় আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে তিন বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও এক হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে, আরও ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি লাভলু মিয়া আদালতের কাঠগড়ায় নীরবে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এদিকে সরকারপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী আইনজীবী বিশেষ পিপি জয়নাল আবেদীন অরেঞ্জ জানান, বাদীপক্ষ ন্যায্য বিচার পেয়েছেন। তারা এ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে আসামি পক্ষের আইনজীবী সুলতান আহাম্মেদ শাহিন বলেন, তারা ন্যায্য বিচার পাননি। রায়ের কপি হাতে পেলে সবকিছু পর্যালোচনা করে এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,629FollowersFollow
583SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles