30.6 C
Rangpur City
Monday, September 26, 2022
Royalti ad

বেরোবিতে বান্ধবী নিয়ে প্রবেশের চেষ্টা, মুচলেকায় ছাড়া পেলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা

-- বিজ্ঞাপন --

ঈদুল ফিতর ও গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে ২১ দিন বন্ধ রয়েছে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি)। এ অবস্থায় ক্যাম্পাসের নিরাপত্তায় বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এরপরও বহিরাগতদের নিয়ে ক্যাম্পাসে জোর করে প্রবেশের চেষ্টা করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ফয়সাল আযম ফাইন।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্য ও নিরাপত্তা কর্মীদের বাঁধার সম্মুখীন হন তিনি। এতে রেগে গিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন তিনি। ক্যাম্পাসে বিশৃঙ্খলার তৈরির অভিযোগে পুলিশ ফাঁড়িতে আটকে রাখা হয় তাকে। পরে মুচলেকা দিয়ে মুক্তি পান তিনি।

-- বিজ্ঞাপন --

মঙ্গলবার (১০ মে) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক ইজার আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, সোমবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর দফতর সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যায় ছাত্রলীগ নেতা ফাহিম বহিরাগত তিন বান্ধবী ও স্বজনদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেট দিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সহ. প্রক্টর আসানুজ্জামান আশান ও আইনশৃঙ্খলায় নিয়োজিত কর্মকর্তারা ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে জানিয়ে তাদের চলে যাওয়ার অনুরোধ জানান। এতে ফাহিম ক্ষিপ্ত হয়ে সহকারী প্রক্টর ও উপস্থিত সকলকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করাসহ অশোভন আচরণ করেন।

-- বিজ্ঞাপন --

জানা গেছে, এ ঘটনায় সহকারী প্রক্টর আশান বিশ্ববিদ্যালয় ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক ইজার আলীকে ফোন দিয়ে বিষয়টি জানান। পরে পুলিশ সদস্যরা ফাহিমকে আটক করে। পরে মুচলেকা দিয়ে মুক্তি পেয়েছেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল দফতরের এক কর্মকর্তা জানান, ছাত্রলীগ নেতা ফাহিমের ছাত্রত্ব নেই। এখন তিনি সাবেক শিক্ষার্থী। আগামী ১৭ মে পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশ পুরোপুরি নিষিদ্ধ। এরপরও তিনি তিন বান্ধবী ও স্বজনদের নিয়ে ক্যাম্পাসে জোর করে প্রবেশ করেন।

-- বিজ্ঞাপন --

উপ-পরিদর্শক ইজার আলী জানান, ছাত্রলীগ নেতা ফাহিমকে আটক করা হয়েছিল। পরে সহকারী প্রক্টরের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফয়সাল আযম ফাইন বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সত্য নয়। মূলত ওই সময় আমি ক্যাম্পাসে ঢুকছিলাম। তখন আমার এক পরিচিত ছোট ভাই তার দুই বান্ধবীকে নিয়ে ক্যাম্পাসে ঢুকতে চেয়েছিল। আমাকে ঢুকতে দেখে তারাও এগিয়ে আসে। তখন তাদের গেটের সামনে আটকে দেওয়া হয় এবং পরিচয়পত্র দেখতে চান নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত লোকজন। আমি অ্যাকাউন্টিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সহকারী প্রক্টর আসানুজ্জামান আশানের কাছে জানতে চাই যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কতজনকে আপনারা পরিচয়পত্র দিয়েছেন? এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয় ওঠেন।’

ফাইন আরও বলেন, ‘আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন এমফিল করছি।’

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণার পরও প্রাক্তন ছাত্র ফাইন তিন জন বহিরাগতকে নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশের চেষ্টা করে এবং সহকারী প্রক্টরের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে। এ ঘটনায় তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। পরে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে মুচলেকা দিয়ে সে ছাড়া পেয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,629FollowersFollow
583SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles