30.6 C
Rangpur City
Monday, September 26, 2022
Royalti ad

“প্রধানমন্ত্রীর কাছে ছেলে হত্যার বিচার চাইলেন ‘গরিবের ডাক্তার’ বুলবুলের মা”

-- বিজ্ঞাপন --

রংপুরে বাবার কবরের পাশে শায়িত হলেন ঢাকায় নিহত দন্ত চিকিৎসক আহমেদ মাহী বুলবুল। সোমবার (২৮ মার্চ) সকালে ঢাকা থেকে তার মরদেহ বহনকারী ফ্রিজিয়ান অ্যাম্বুলেন্সটি রংপুর নগরীর রামপুরায় নিজ বাড়িতে এলে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। প্রিয় মানুষের মুখখানা শেষ বারের মতো দেখতে ছুটে আসেন স্বজন ও এলাকাবাসী।

তবে জানাজার আগে ডা. বুলবুলের হত্যাকারীদের শাস্তি ও রাষ্ট্রীয়ভাবে পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবিতে এসএসসি-৯৭ ব্যাচ সংবাদ সম্মেলন করে। এতে বক্তব্য দেন নিহতের মা বুলবুলি বেগম।

-- বিজ্ঞাপন --

সংবাদ সম্মেলনে তিনি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে হাত জোর করে ছেলে হত্যার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেছেন ঢাকায় দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত গরিবের ডাক্তার আহমেদ মাহি বুলবুলের মা বুলবুলি বেগম। একই সঙ্গে তিনি বুলবুলের সন্তানের পড়ালেখার দায়িত্ব সরকারকে নেওয়ার অনুরোধ জানান। এ সময় বুলবুলের সন্তান কোলে নিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

সহপাঠী ডা. মোস্তফা আলম বলেন, আমরা অকালে একজন ভালো মানুষকে হারালাম। আমাদের এসএসসি-৯৭ ব্যাচের বন্ধুদের দাবি হচ্ছে, যেভাবে আওয়ামী লীগ নেতা টিপু হত্যাকারীকে দ্রুত গ্রেফতার করা হয়েছে, সেইভাবে ডা. বুলবুলের হত্যাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। সেই সাথে তার পরিবারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

-- বিজ্ঞাপন --

সংবাদ সম্মেলনে ডা. বুলবুলের সহপাঠী ও এসএসসি-৯৭ ব্যাচের বন্ধুরা বলেন, দন্ত চিকিৎসক আহমেদ মাহি বুলবুল একজন সামাজিক ও মানবিক মানুষ ছিলেন। শিশুদের নিয়ে কাজ করতেন। ডা. বুলবুল দেশের প্রথম শ্রেণির একজন নাগরিক। তার এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পিছনে কোনও উদ্দেশ্য আছে কিনা, সেটা গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখা উচিত। তার মৃত্যুতে দুই সন্তান, স্ত্রী-মাসহ পরিবারটি এখন অসহায়। তার পরিবারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান তারা।

রোববার (২৭ মার্চ) ভোরে রাজধানীর শেওড়াপাড়ায় নির্মাণাধীন মেট্রো রেলস্টেশন এলাকায় ছুরিকাঘাতে নিহত হন গরিবের ডা. আহমেদ মাহী বুলবুল।

-- বিজ্ঞাপন --

পুলিশ কর্মকর্তা ও স্বজনরা বলছেন, বুলবুল ঠিকাদারি কাজের প্রয়োজনে নোয়াখালী যাচ্ছিলেন। তার কাছে থাকা ১২ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন নেয়নি দুর্বৃত্তরা। তবে একটি মোবাইল ফোন খোয়া গেছে। ঘটনাটি ছিনতাই বলে ধারণা করা হলেও মৃত্যুর ধরন দেখে ভিন্ন সন্দেহ হচ্ছে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী শাম্মী আখতার শান্তি বাদী হয়ে মিরপুর থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,629FollowersFollow
583SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles