27.8 C
Rangpur City
Sunday, June 26, 2022
Royalti ad

তাবে কি ভেঙে যাচ্ছে ওমর সানী-মৌসুমীর সংসার?

-- বিজ্ঞাপন --Royalti ad

নব্বইয়ের দশকে ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জুটি, বাস্তব জীবনেও যাদের ২৭ বছরের দাম্পত্য; সেই ওমর সানী-মৌসুমীর সংসারে বাজছে ভাঙনের সুর।

লোকমনে একটা ধারণা প্রচলিত আছে, বিনোদন জগতের মানুষের সংসার টেকে না। সেই ধারণা ভুল প্রমাণ করেছেন যে’কজন তারকা, তাদের মধ্যে অন্যতম ওমর সানী ও মৌসুমী। ১৯৯৬ সালে বিয়ের পর তারা দীর্ঘ ২৬ বছর ধরে সংসার করছেন। ঢালিউডের আদর্শ দম্পতির মধ্যেও তাদের নামটি বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়।

-- বিজ্ঞাপন --

কিন্তু গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, দুই যুগ পেরোনো এই সংসারেও নাকি ফাটল ধরেছে। সাম্প্রতিক কয়েকটি ঘটনাকে ঘিরেই গুঞ্জনের সূত্রপাত। গত শুক্রবার একটি শোরুম উদ্বোধনে আমন্ত্রিত ছিলেন ওমর সানী ও মৌসুমী। সেখানে তারা একসঙ্গে হাজির হননি। আলাদাভাবে গিয়ে কেক কাটেন। এমনকি অনুষ্ঠানস্থলে তারা কোনো কথাও বলেননি। পরে আলাদাভাবে স্থান ত্যাগ করেন।

শোনা যাচ্ছে, কিছুদিন ধরে আলাদা থাকছেন মৌসুমী ও ওমর সানী। এবার ওমর সানী নিজেই জানালেন, মৌসুমীর সঙ্গে তার কথাও বন্ধ রয়েছে। জায়েদ খান ইস্যুতে তাদের মধ্যে কিছুটা দূরত্ব তৈরি হয়ে গেছে।

-- বিজ্ঞাপন --

ওমর সানী বলেন, “আমি যা বলেছি স্পষ্ট করেই বলেছি। আমি শ্রদ্ধা রেখেই কথা বলতে চাই। আমার পরিবারের প্রতি, মৌসুমীর প্রতি আমার প্রচণ্ড শ্রদ্ধা আছে, আমার ছেলে-মেয়ের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে। সে (মৌসুমী) যা বলেছে, কী ভেবে বলেছে, আমি জানি না। এ বিষয়টি নিয়ে কিছুদিন ধরে একটু দূরত্ব তো চলছিল। চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু আপনারা ভালো জানবেন, ফোন রেকর্ড অনুযায়ী তার সাথে আমার ফোনেও কথা হচ্ছিল না।”

মৌসুমীর প্রতি পূর্ণাঙ্গ সম্মান দেখিয়ে ওমর সানী বলেন, “আমি তার ব্যাপারে মন্দ কথা, খারাপ কথা কিছুই বলব না। সে এখনো আমার স্ত্রী। আমার সন্তানের মা। একটা কথা বলতে চাই- আমি কী বলেছি না বলেছি সম্পূর্ণ আমার ছেলে ফারদিন, আমার মেয়ে ফাইজা জানে। আমাদের কাছে যথেষ্ট পরিমাণ প্রমাণ আছে জায়েদ খান যে ডিস্টার্ব করে। ফারদিন বলুক আর ফাইজা বলুক। আমার ছেলে-মেয়েরা বলুক এই বিষয়গুলো। আমি এ নিয়ে কথা বলতে চাই না।”

-- বিজ্ঞাপন --Bicon Icon

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১০ জুন) খল অভিনেতা ডিপজলের বড় ছেলের বিবাহোত্তর সংবর্ধনায় অংশ নেন ওমর সানী। সেখানে তিনি জায়েদ খানকে চড় মেরেছেন বলে দাবি করেছেন। বিপরীতে জায়েদ তাকে পিস্তল ঠেকিয়ে হুমকি দিয়েছে। এরপর শিল্পী সমিতিতে জায়েদ খানের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন সানী। তাতে বলেছেন, জায়েদ খান তার ও মৌসুমীর সংসার ভাঙার চেষ্টা করছে।

যদিও ওমর সানীর অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন জায়েদ খান। এমনকি চড়-পিস্তলের ঘটনাও সত্য নয় বলে তার দাবি।

এরপর সোমবার (১৩ জুন) মৌসুমী নিজেও মুখ খুলেছেন। তিনি স্বামী ওমর সানী নয়, বরং জায়েদ খানের পক্ষ নিয়ে বক্তব্য দিয়েছেন। ফলে নেটিজেনদের মনে তাদের সংসার ভাঙার শঙ্কা আরও প্রবল হয়েছে। তবুও ভক্তদের প্রত্যাশা, সাময়িক অভিমান-ভুল বোঝাবুঝি ভুলে পুনরায় সুন্দর-শান্তিপূর্ণ সংসারে ফিরবেন এই তারকা দম্পতি।

এ বিষয়ে ফারদিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেছেন, বাবার ওপর রাগ করেছে মা।

এ অবস্থা ধীরে ধীরে ঠিক হয়ে যাবে বলে আশা করছেন ফারদিন। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘যতটা বড় করে জিনিসটা দেখা হচ্ছে, ততটা বড় এটা না। তাদের মধ্যে কোনো ইস্যু থাকলে সেটা তাদের মধ্যেই সমাধান হয়ে যাবে। সেখানে বাবাকে কেন্দ্র করে যদি বলে থাকে, তাহলে সেটা রাগ থেকেই হয়তো বলেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার ঘরের বিষয় এখনও এত বাজে আকারে পরিণত হয়নি বা হবেও না যেটা নিয়ে এত সংবাদ প্রচার করতে হবে।’

ফারদিন জানান, সোমবার সকালে মৌসুমী যে অডিও বার্তা দিয়েছেন, তা মূলত পুরো বিষয়টাকে শীতল করার জন্য।

তিনি বলেন, ‘আমি মাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম ব্যাপারটা নিয়ে। মা বললেন, ঘরের মধ্যে অনেক কিছু নিয়েই মনোমালিন্য থাকে। ছোট বিষয়, বড় বিষয় নিয়ে ইস্যু তৈরি হয়।

‘আম্মু আমাকে আরও বলেছে, এটা যেন আরও বড় করে না হয় সে জন্যই এটা করেছি। যা সমস্যা হবে ঘরে, যা সমাধান হবে তাও ঘরে।’ ওমর সানীর তোলা অভিযোগ জায়েদ খানের দ্বারা ঘটানো সম্ভব বলেও মনে করেন ফারদিন।

ফারদিন বলেন, ‘জায়েদ খান কখনই তাদের (সানী-মৌসুমী) ভালো চায়নি। নির্বাচনের সময় থেকে শুরু হয়েছে। আমাকে হেনস্তা করেছে। শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে, আব্বু-আম্মুকে পাচ্ছে না, আমাকে ধরছে। আমার রেস্টুরেন্টকে আঘাত করে আমাদের ক্ষতি করার চেষ্টা করেছে। যখন আমাকে দিয়ে ফুলফিল হয় নাই, তখন আম্মুকে দিয়ে চেষ্টা করতে চাইছে, আব্বুকে দিয়ে চেষ্টা করতে চাইছে। ‘খারাপ মানুষ যে কোনোভাবে খারাপ কাজটায় সাফল্য পেতে চাইবে।’

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,655FollowersFollow
463SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles