29.8 C
Rangpur City
Friday, August 12, 2022
Royalti ad

চলছে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বক্তব্য শুরু করলেন প্রধানমন্ত্রী

-- বিজ্ঞাপন --

পদ্মা সেতু উদ্বোধনে আয়োজিত সুধী সমাবেশে যোগ দিয়ে বক্তব্য শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (২৫ জুন) সকাল ১০টা ৪৮ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য দেয়ার জন্য স্টেজে ওঠেন। এ সময় সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তার বক্তব্য শুরু করেন শেখ হাসিনা।

স্বপ্ন পূরণে আরও একধাপ এগোলো বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়তায় খরস্রোতা পদ্মা নদীর ওপর নির্মিত হয়েছে সেতু। সেটি উদ্বোধন অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

শনিবার (২৫ জুন) সকাল ১০টা ৫ মিনিটে পদ্মা সেতুর থিম সং পরিবেশনের মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

সুধি সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। সচিবের বক্তব্যের পর দেখানো হয় প্রামাণ্য চিত্র। সেই প্রামাণ্য চিত্রে উঠে আসে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গুরুত্বপূর্ণ কিছু চিত্র। দেখানো হয় পদ্মা সেতু থেকে বিশ্ব ব্যাংকের মুখ ফিরিয়ে নেওয়ার সেসময়ের বিভিন্ন প্রতিবেদন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর সেই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত আমরা আমাদের নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু করব। প্রামাণ্য চিত্রের মাঝখানে বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক বক্তব্য ‘বাঙালিকে কেউ দাবায়া রাখতে পারবা না’ তুলে ধরা যায়।

-- বিজ্ঞাপন --

এর আগে শনিবার সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে তেজগাঁও পুরাতন বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারযোগে মুন্সিগঞ্জে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এরপর সকাল ১০টায় মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সেখানে সকাল ১১টায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট, স্যুভেনির শিট, উদ্বোধন খাম ও সিলমোহর প্রকাশ করবেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর সকাল ১১টা ১২ মিনিটে টোল দিয়ে মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী ফলক ও ম্যুরাল-১ উন্মোচন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রায় সাড়ে ৩ হাজার অতিথিকে মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সেতুর টোল প্লাজার কিছুটা আগে এক পাশে অস্থায়ী প্যান্ডেল করে অতিথিদের বসার ব্যবস্থা হয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা এবং আমন্ত্রিত অতিথিরা সুধী সমাবেশে উপস্থিত রয়েছেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা এবং মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরাও উপস্থিত রয়েছেন।

অনুষ্ঠান উপলক্ষে যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। অনুষ্ঠান মঞ্চ প্রাঙ্গণে ছয়টি ওয়াচ টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে। সেখানে দেড় শতাধিক সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। সেনাবাহিনীর সদস্য, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট এবং এসএসএফ সদস্যরা অনুষ্ঠানস্থলে কাজ করছেন। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় তারা তৎপর বলে জানিয়েছেন আইন শৃঙখলা রক্ষাকারী বাহিনী।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,637FollowersFollow
498SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles