27.8 C
Rangpur City
Saturday, May 21, 2022
Royalti ad

গাইবান্ধায় নৌকার জয়ে সমর্থকের পুকুরে মাছ ধরলেন হাজারো ভোটার

-- বিজ্ঞাপন --Royalti ad

গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিত হয় গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জোবায়ের হাসান মো. শফিক মাহমুদ গোলাপ নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে তিনি নানান প্রতিশ্রুতি দেন।

একই ইউনিয়নের জাকির হোসেন নামের এক সমর্থক দলীয় এই প্রার্থীর গণসংযোগ করতে গিয়ে ব্যতিক্রম এক প্রতিশ্রুতি দেন। নির্বাচনে নৌকা জয়ী হলে একদিনের জন্য তার নিজের পুকুরে মাছ শিকার সবার জন্য উন্মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ব্যবসায়ী জাকির। নৌকা প্রার্থী নির্বাচনে জয়লাভ করেন। সেই প্রতিশ্রুতি রাখলেন এবার জাকির হোসেনও।

-- বিজ্ঞাপন --

শনিবার (৫ মার্চ) সকাল থেকে নাসিরাবাদ গ্রামের হিলালী পুকুরে বড়শি হাতে মাছ শিকারে মেতে ওঠেন ওই ইউনিয়নের সহস্রাধিক নারী-পুরুষ। বিকেল পর্যন্ত তারা মাছ ধরেন। এর আগে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার (৩ মার্চ) সকাল ৯টায় দিনব্যাপী বড়শি হাতে মাছ শিকারের উদ্বোধন করেন করেন ইউপি চেয়ারম্যান জোবায়ের হাসান মো. শফিক মাহমুদ গোলাপ।

কাটাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার মাছ শিকারের বিষয়টি কয়েকদিন আগেই ঘোষণা দেন জাকির হোসেন। সে অনুযায়ী ইউনিয়নের মানুষ বড়শি, সুতা, ভারা, পাতাই ও ছিপ কিনে নিয়ে যান দোকান থেকে। এরপর নিজ হাতে বাড়িতে প্রস্তুত করেন ছিপ। অনেকে মাছের টোপ হিসেবে কেনেন আটা ও পাউরুটি।

-- বিজ্ঞাপন --

ঘোষনা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই কাটাবাড়ীর হিলালী পুকুরে জড়ো হতে থাকেন ইউনিয়নটির বিভিন্ন গ্রামের সহস্রাধিক মানুষ। পুকুর পাড়ে পৌঁছার পর তাদের কাছ থেকে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি নেওয়া হয়। এরপর তাদেরকে মাছ শিকারের জন্য পুকুর পাড়ে বসতে দেওয়া হয়।

এসব কাজ পরিচালনার জন্য আনা হয় মাইক। স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজও করেন বেশ কয়েকজন। এদিন সকাল ৯টায় উদ্বোধনের পর বড়শি হাতে মাছ ধরা শুরু করেন সবাই। তারপর জমা নেওয়া জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি লটারি করে ১০ জন পান জাল দিয়ে মাছ ধরার অনুমতি। দিন শেষে সবাই বিভিন্ন প্রজাতির মাছ শিকার করে বাড়ি নিয়ে যান।

-- বিজ্ঞাপন --Bicon Icon

বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে এই মাছ শিকার এক উৎসবে পরিণত হয়।

পুকুরের মালিক জাকির হোসেন বলেন, আমি নৌকাকে ভালোবাসি। আমার পুকুরে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ২০ লাখ টাকার মাছ রয়েছে। নির্বাচনে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষার্থে বৃহস্পতিবার আমি সকলের জন্য বিনামূল্যে মাছ শিকার উন্মুক্ত করে দিই। এতে আশপাশের বিভিন্ন এলাকার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত হয়ে মাছ শিকার করে। বড়শি হাতে বড় বড় মাছ শিকার করে তারা বাড়ি নিয়ে যান। বিনামূল্যের এই মাছ শিকার উৎসবে রূপ নেওয়ায় আজও (শনিবার) বিনামূল্যে মাছ শিকার সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।
 

বড়শি হাতে মাছ শিকারে আসা সোনিয়া বেগম, আসমা বেগম ও লিপি বেগমসহ কয়েকজন নারী জানান, ছোটবেলায় বড়শি দিয়ে পুকুরে এবং বর্ষাকালে জমি চাষের সময় ট্রাক্টরের পেছনে পেছনে প্লাস্টিকের বড় ডালি ও জাল দিয়ে মাছ ধরেছি। জমি সেচে মাছ ধরেছি, পুকুর সেচ দিলে মাছ ধরেছি। কিন্তু বিয়ের পর আর মাছ শিকার করা হয়নি। তাই মাছ শিকারের কথা জানতে পেরে খুবই খুশি হয়েছি। তাই এসেছি বড়শি হাতে মাছ শিকার করতে।
কাটাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জোবায়ের হাসান মো. শফিক মাহমুদ গোলাপ বলেন, জাকির হোসেন একজন একনিষ্ঠ কর্মী। নির্বাচনে তিনি প্রচুর শ্রম দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের জয় হলে তিনি তার নিজস্ব পুকুরে সবার জন্য বিনামূল্যে মাছ শিকারের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সবাইকে চমকে দেন। তিনি প্রতিশ্রুতি রক্ষা করায় দলের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে। এজন্য জাকির হোসেনকে ধন্যবাদ জানান ইউপি চেয়ারম্যান জোবায়ের হাসান।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,666FollowersFollow
397SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles