31.4 C
Rangpur City
Monday, September 26, 2022
Royalti ad

গম উৎপাদনে খরচ বাড়লেও পঞ্চগড়ে মিলছে না ন্যায্য দাম

-- বিজ্ঞাপন --

চা, ধান, পাট ও ভূট্টা চাষের পাশাপাশি দিন দিন অর্থকরী ফসল হিসেবে গমের ফলনও বৃদ্ধি পাচ্ছে দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে। অনুকূল আবহাওয়া আর চাষ উপযোগী মাটি হওয়ায় কৃষকেরাও ঝুঁকেছেন গমে। এতে দিন দিন গমের আবাদ বাড়ার সঙ্গে বাড়ছে উৎপাদনও। কিন্তু বিগত বছরের তুলনায় চলতি বছরে নায্য দাম না পাওয়ায় হতাশ গমচাষিরা।

জেলার বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে দেখা গেছে, কৃষকরা তাদের জমি থেকে গম উত্তোলন ও মাড়াইয়ের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। অনেক কৃষক আবার তাদের উৎপাদিত গম মাড়াইয়ের পর শুকিয়ে বিক্রির জন্য বাজারে গিয়ে বিক্রি করে বাড়ি ফিরছেন। কিন্তু গত বছরের তুলনায় চলতি বছরে গমে খরচ বাড়লেও প্রত্যাশিত মূল্য না পেয়ে অনেকেরই লোকসান হয়েছে।

-- বিজ্ঞাপন --

পঞ্চগড় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. শামীম বলেন, আবহাওয়া ভালো থাকায় জেলায় ২১ হাজার ৫৪০ হেক্টর জমিতে গমের চাষ হয়েছে, যা গতবারের চেয়ে ৩ হাজার হেক্টর বেশি। আমরা কৃষকদের বিনামূল্যে বীজ ও সার দিয়েছি। পাশাপাশি প্রতিনিয়ত তাদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। কৃষকরা যাতে উৎপাদিত গমের ভালো দাম পায়, সেটিও আমরা চেষ্টা করছি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, আবহাওয়া অনুকূল, পরিমিত বৃষ্টি আর দীর্ঘস্থায়ী শীত ও কুয়াশা না পড়ায় বিগত বছরের তুলনায় এ বছর জেলার সদর, তেঁতুলিয়া, আটোয়ারী, বোদা ও দেবীগঞ্জসহ ৫ উপজেলায় গমের ফলন ভালো হয়েছে। চলতি বছরে জেলায় মোট ২১ হাজার ৫৪০ হেক্টর জমিতে গমের চাষ হয়েছে, যা গত বছরের চেয়ে ৩ হাজার হেক্টর বেশি।

গম উত্তোলন ও মাড়াইয়ের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন
-- বিজ্ঞাপন --

তবে সদর ও তেঁতুলিয়া উপজেলায় গমের চাষ বেশি হয়েছে দাবি করছেন চাষিরা। সঙ্গে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কাছ থেকে সার ও বীজ পাওয়ার সুবিধার কথাও বলছেন তারা।

এদিকে গমচাষিরা জানান, বিগত বছরের তুলনায় এ বছর বীজ, সার, কীটনাশক, ডিজেল, সেচ, শ্রমিকদের মজুরি বেড়েছে। গমের জমি প্রস্তুত করা থেকে শুরু করে গম কাটা-মাড়াইয়ের খরচও আগের চেয়ে বেশি। বাজারের প্রতিমণ গম বিক্রি হচ্ছে ৮শ থেকে ৮৫০ টাকা দরে। ভালো গমের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৯০০ টাকা। গতবার প্রতিমণ গম বিক্রি হয়েছে ৯৫০ থেকে ১০৫০ টাকা। এবার বেশি টাকা খরচ করে লাভের আশায় গম চাষ করে দুশ্চিন্তায় আছেন হাজার হাজার কৃষক।

-- বিজ্ঞাপন --

তাদের দাবি, গমের দাম বাড়ানো না হলে লোকসান গুনতে হবে। সেই লোকসানের প্রভাব পড়বে আগামী বছর। গমের উৎপাদন যাতে না কমে এ জন্য দামের ব্যাপারে ব্যবসায়ীসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের সহযোগিতা চাইছেন তারা।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার গমচাষি তবিবর রহমান। তিনি বলেন, গম চাষে খরচ বেশি কিন্তু বাজারে দাম কম। এবার তেল, সার কীটনাশক, শ্রমিক, মাড়াইসহ সব খরচ বেড়েছে। কিন্তু বাজারে গমের মণ ৮০০ থেকে ৮৫০ টাকার বেশি মিলছে না। কম দামে গম বিক্রি করলে আমাদের লোকসানে পড়তে হচ্ছে। আমরা নায্য দামের আশা করছি।

তেঁতুলিয়া উপজেলার সাতমেড়া এলাকার কৃষক আব্দুল করিম বলেন, গত বছর গমের দাম ভালো পাওয়ায় এবার ৩ বিঘা জমিতে গমের চাষ করেছি। তবে গতবারের চেয়ে এবার খরচ দিগুণ হয়েছে। আবার ফলনও ভালো পেয়েছি। কিন্তু বাজারে গমের দাম নেই। কৃষকরা ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত। এখন লাভ তো দূরের কথা মূলধন তোলা নিয়েই দুশ্চিন্তায় পড়েছি।

পাইকারি ব্যবসায়ী বসিরুল আলম জানান, গত বছর গমের দাম ৯৫০-১০৫০ টাকা ছিল। আবহাওয়া ভালো হলে এবারও গমের দাম ভালো থাকবে। বর্তমানে প্রতিমণ গম ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা পর্যন্ত ক্রয় হচ্ছে। তবে আবহাওয়া খারাপ ও গম কাঁচা থাকার কারণে দামের হেরফের হয়ে থাকে।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,629FollowersFollow
583SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles