27.8 C
Rangpur City
Saturday, May 21, 2022
Royalti ad

কোটি পরিবারের কাছে সাশ্রয়ীমূল্যে পণ্য বিক্রি শুরু রোববার

-- বিজ্ঞাপন --Royalti ad

আগামী ২০ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত প্রথম ধাপে সারাদেশে সাশ্রয়ীমূল্যে পণ্য বিক্রি করবে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে এ পণ্য কেনা যাবে। দ্বিতীয় ধাপে ৩ এপ্রিল থেকে সাশ্রয়ীমূল্যে ফ্যামিলি কার্ডধারীরা টিসিবির পণ্য কিনতে পারবেন। তবে দ্বিতীয় ধাপে পণ্য বিক্রি কবে নাগাদ শেষ হবে, তা জানানো হয়নি।বিশেষ এ কার্ডের মাধ্যমে একসঙ্গে পণ্য কিনতে পারবেন ঢাকা ও বরিশাল সিটি ছাড়া সারা দেশের ৮৭ লাখ ১০ হাজার মানুষ। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এবং বরিশাল সিটি করপোরেশন ফ্যামিলি কার্ডের আওতার বাইরে থাকবে। ঢাকার দুই সিটির ১২ লাখ এবং বরিশালের ৯০ হাজার উপকারভোগী পরিবারকে টিসিবির ভ্রাম্যমাণ ট্রাক থেকে পণ্য কিনতে হবে।শুক্রবার (১৮ মার্চ) রাজধানীর কারওয়ান বাজারের টিসিবি ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। এসময় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ উপস্থিত ছিলেন।

-- বিজ্ঞাপন --

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আরিফুল হাসান বলেন, দেশের মোট এক কোটি পরিবারকে সাশ্রয়ীমূল্যে পণ্য দেয়া হবে। করোনাকালে দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে নগদ সহায়তা দিতে যে তালিকা তৈরি করা হয়েছিল, তার মধ্য থেকে ৩০ লাখ পরিবার এ বিশেষ কার্ড পাচ্ছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও জেলা প্রশাসনের সহায়তায় ৫৭ লাখ ১০ হাজার উপকারভোগীর তালিকা করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকার দুই সিটির ১২ লাখ ও বরিশাল সিটি করপোরেশনের ৯০ হাজার পরিবর টিসিবির ভ্রাম্যমাণ ট্রাক থেকে পণ্য কিনতে পারবে।টিসিবি চেয়ারম্যান আরও বলেন, আগামী ২০ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত প্রথমপর্বে এক কোটি উপকারভোগী পরিবারের মাঝে দুই লিটার সয়াবিন তেল (১১০ টাকা লিটার), দুই কেজি চিনি (৫৫ টাকা দরে), দুই কেজি মসুর ডাল (৬৫ টাকা দরে)। দ্বিতীয় ধাপে ৩ এপ্রিল থেকে এসব পণ্যের সঙ্গে আরও দুই কেজি ছোলা (প্রতি কেজি ৫০ টাকা) যুক্ত হবে।ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আরিফুল হাসান বলেন, আমরা ৮ মার্চ থেকে সংশ্লিষ্ট জেলাসমূহে পণ্য পাঠানো শুরু হয়েছে এবং প্রতিটি জেলায় টিসিবির পণ্য পর্যাপ্ত পরিমাণে পৌঁছে গেছে। জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে প্রতিটি জেলায় খাদ্য অধিদপ্তর, বিএডিসি ও নির্ধারিত গুদামে টিসিবির পণ্য গ্রহণ ও প্যাকিং চলছে। আগামী ২০ মার্চ থেকে পণ্য বিক্রির জন্য যেসব প্রস্তুতি নেয়া দরকার, তা প্রায় শেষ।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,666FollowersFollow
397SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles