19.8 C
Rangpur City
Tuesday, December 6, 2022

ইফতার পার্টিকে কেন্দ্র করে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে যুবদলের দুগ্রুপের সংর্ঘষ

-- বিজ্ঞাপন --

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলায় ইফতার পার্টিকে কেন্দ্র করে যুবদলের দুই গ্রুপের সংর্ঘষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

রোববার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় নাগেশ্বরীর দক্ষিণ বেপারির হাটে এ সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।

-- বিজ্ঞাপন --

সংঘর্ষে আহতদের একজন কুড়িগ্রাম পৌর এলাকার হাসপাতাল পাড়ার ফয়েজ উদ্দিন বাচ্চুর ছেলে যুবদলকর্মী ইমরান হোসেন আকাশ (৩০) আহত হয়ে নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। পরে চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র নিয়ে চলে যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাদিম আহমেদ বলেন, যে ঘটনাটি ঘটেছে সেটি ন্যাক্কারজনক এবং দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে।

-- বিজ্ঞাপন --

এ বিষয়ে উপজেলা যুবদলের আহবায়ক নুরুজ্জামাল হক বলেন, ইফতার পার্টি আয়োজন করা হয়েছিল আমাদের পক্ষ থেকে। সেই মোতাবেক জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও আমি জেলা যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে আমন্ত্রণ করেছিলাম। কিন্তু কে বা কাহারা উপজেলা যুবদলের ব্যানারে ইফতার পার্টির আয়োজন করে নাগেশ্বরী মহিলা কলেজে। সেটি আমরা পুলিশ ও কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে বন্ধ করে দেই। কিন্তু তারপরও তারা ইফতার পার্টি অন্যত্র আয়োজন করে। সেখানে জেলা যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আসার খবর পেয়ে আমরা দক্ষিণ ব্যাপারিরহাটে তাদের সাথে সাক্ষাত করি। এসময় সভাপতিসহ জেলার নেতৃবৃন্দ আমাকে অপমানজনক কথাবার্তা বললে হাতাহাতি বেঁধে যায়। এসময় আমিসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছি। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।

জেলা যুবদলের সভাপতি রায়হান কবির বলেন, দেশনেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রোগ থেকে মুক্তি উপলক্ষে উপজেলা যুবদলের পক্ষ থেকে একটি ইফতার ও দোয়ার আয়োজন করা হয় নাগেশ্বরী মহিলা কলেজে। কিন্তু জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানার নির্দেশে স্থানীয় প্রশাসন সেটি বন্ধ করে দেয়।

-- বিজ্ঞাপন --

পরে উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ হোসেনের একটি চাতালে এই ইফতার পার্টির আয়োজন করা হয়। সেখানে জেলা যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নাদিম আহমেদের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা অংশ নেবার জন্য রওয়ানা হয়। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানার সমর্থিতরা পথিমধ্যে ব্যাপারিরহাট এলাকায় আমাদের গতিরোধ করলে সংঘর্ষ তৈরি হয়। এতে বেশ কয়েকজন আহতও হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে ইফতার পার্টিতে আমাদের যাবার সুযোগ করে দেয়।

এই বিষয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা বলেন, আমি ঘটনা স্থলে ছিলাম না। তাই বিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই। এই ঘটনায় যুবদলের পক্ষ থেকে কেউ অভিযোগ করেনি।

নাগেশ্বরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নবিউল হাসান বলেন, নাগেশ্বরীতে ইফতার পার্টি আয়োজনকে কেন্দ্র করে যুবদলের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেই। তবে এই
বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেনি বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

-- বিজ্ঞাপন --

Related Articles

Stay Connected

82,917FansLike
1,607FollowersFollow
768SubscribersSubscribe
-- বিজ্ঞাপন --

Latest Articles